shopner bd
শুক্রবার, ০৬ আগস্ট ২০২১, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭
×

মধ্যপ্রাচ্যের সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের আকার বেড়েছে ১১ শতাংশ

  স্বপ্নের বাংলাদেশ ডেস্ক    ১৩ জুলাই ২০২১, ১৬:২৫

মধ্যপ্রাচ্যের সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের আকার বেড়েছে ১১ শতাংশ

মধ্যপ্রাচ্যের সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের আকার ১১ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৯ সালে অঞ্চলটির অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্টের পরিমাণ ছিল ১ লাখ ১০ হাজার কোটি ডলার। ২০২০ সালে এটি বেড়ে ১ লাখ ২০ হাজার কোটি ডলারে পৌঁছেছে। বোস্টন কনসাল্টিং গ্রুপের (বিসিজি) প্রকাশিত ‘গ্লোবাল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট ২০২১: দ্য ১০০ ট্রিলিয়ন মেশিন’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এমনটা দেখা যায়।

বিসিজির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও অংশীদার হেরোল্ড হাদ্দাদ গালফ নিউজকে জানান, অন্য অনেক খাতের মতো ২০২০ সালে সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের সহনশীলতাও পরীক্ষিত। মহামারীর প্রাথমিক প্রাদুর্ভাব কাটিয়ে ওঠার পাশাপাশি অর্থনীতিতে অনুকূল পরিবেশ এ খাতে ভবিষ্যতের জন্য একটি অনিশ্চিত আকার তৈরি করেছে। তবে মধ্যপ্রাচ্য একটি প্রতিকূল পরিবেশের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। চলতি বছর অঞ্চলটি একটি শক্তিশালী অর্থনৈতিক অবস্থার মধ্যে প্রবেশ করেছে।

বিসিজির প্রতিবেদনে দেখা যায়, প্রাথমিকভাবে মধ্যপ্রাচ্যের অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্ট অঞ্চলটির সভেরিন ওয়েলথ ফান্ডস (এসডব্লিউএফ) সম্পদ বাড়াতে ভূমিকা রেখেছে। বিশেষ করে পুঁজিবাজারের শক্তিশালী অবস্থার কারণে এমনটা দেখা দিয়েছে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, অনেক সার্বভৌম সম্পদ তহবিলের মূলধনের বিপরীতে ঝুঁকিও বেড়েছে প্রচুর। উন্নয়নশীল ও উদীয়মান বাজারে এমন অবস্থার দেখা মিলেছে। প্রাক-মহামারী স্তর অনুযায়ী অর্থনৈতিক চিত্র কিছু পুনরুদ্ধার হওয়ার কারণে এ শিল্প বেশ এগিয়ে চলছে। পাশাপাশি অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্টের অন্য একটি শক্তিশালী খাত খুচরা বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও এমনটা দেখা গিয়েছে।

২০২০ সালে মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে রিটেইল মিউচুয়াল ফান্ডের আকার বেড়েছে ১২ শতাংশ। বৈশ্বিক বাজার ব্যবস্থার শক্তিশালী কার্যক্রম এ প্রবৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখেছে। বিশ্বব্যাপী সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের ওপর ১৯তম বার্ষিক বিসিজি স্টাডিতে দেখা যায়, প্রতিকূল সময়গুলোতে অন্যান্য বাজারের প্রবৃদ্ধির হার, অবস্থা ও এ অবস্থার মধ্যে ব্যাপক ব্যাখ্যা করার সময় মূল কী বিষয়বস্তু উঠে আসে তা বর্ণনা করা হয়।

২০২০ সালে বৈশ্বিকভাবে সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের নিট প্রবাহ ২ লাখ ৮০ হাজার কোটি ডলারে পৌঁছেছে, যা ওই বছরের শুরুতে থাকা অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্টে মোট পরিমাণের ৩ দশমিক ১ শতাংশ। এটা গত দশকের গড় প্রবৃদ্ধি ধারার তুলনায় ১ থেকে ২ শতাংশ বেশি। এরমধ্যে আবারো খুচরা বিনিয়োগকারীরা অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্টের মূল চালিকাশক্তি বলে প্রমাণিত হয়েছে। ২০২০ সালে বৈশ্বিক রিটেইল অ্যাসেট আন্ডার ম্যানেজমেন্টের প্রবৃদ্ধি ঘটেছে ১১ শতাংশ, যা বৈশ্বিক ৪২ লাখ কোটি ডলার সম্পদের ৪১ শতাংশ। একই সঙ্গে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগের পরিমাণ বেড়েছে ৬১ লাখ কোটি ডলার, যা বৈশ্বিক বাজারের ৫৯ শতাংশ।

প্রতিষ্ঠানটির আরেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা বোসকা বলেন, উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনসহ সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্প সাম্প্রতিক সংকট থেকে বেরিয়ে আসছে। যদিও অপারেটিং পরিবেশের পরিবর্তন অব্যাহত রয়েছে। যেমন ঝুঁকিপূর্ণ জলবায়ু।

বিসিজির ২০২১ গ্লোবাল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট প্রতিবেদনে বিবেচনা করা হয়েছে- নতুন বাস্তবতা যেমন বাজার ও প্রযুক্তি কীভাবে ভবিষ্যতের শিল্পনেতাদের রূপ দেবে এবং কেন সুনির্দিষ্ট ক্ষেত্রগুলো যেমন ব্যক্তিগত বাজার, ইএসজি বিনিয়োগ এবং উন্নত ডাটা ও বিশ্লেষণগুলো কী ধরনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। সামনের বছরগুলোতে সম্পদ ব্যবস্থাপনা শিল্পের বৃদ্ধি এবং রূপান্তরের ক্ষেত্রে গবেষণাটিতে বেসরকারি বাজারগুলোর দৃষ্টিভঙ্গিও অন্বেষণ করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র

প্রধান সম্পাদকঃ মোহাম্মদ আবুল বশির
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ মনির হোসেন
বার্তা ও সম্পাদকীয় কার্যালয়ঃ ৩৩ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫

মোবাইলঃ +৮৮ ০১৮১৩ - ৮১৮৬৯৬

ফোনঃ +৮৮ ০২ - ৫৫০১৩৯৩৯

ইমেইলঃ shwapnerbd@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০২১ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।